Saturday, 17 December 2016

ধুমপান করা মাকরূহ নাকি হারাম? ? smoking halal o rharam

ধুমপানঃ অনেক বছর আগে যখন বিজ্ঞান তেমন উন্নত
ছিলনা তখন বেশির ভাগ ইসলামিক বিশেষজ্ঞ বলতেন ধুমপান
করা মাকরুহ। আর এর ভিত্তি ছিল একটি হাদিস যেটা আছে সহি
smoking bed for helth
বুখারী খন্ড ১, হাদিস নং ৮৫৫. নবীজি বলেছেন
কখনো কেউ যদি কাঁচা রসুন বা পেঁয়াজ খায়
তাহলে সে যেন আমার কাছ থেকে আর
মসজিদ থেকে দূরে থাকে। এই হাদিস উপর ভিত্তি
করে ফতোয়া দিয়েছিল ধুমপান মাকরুহ কারণ রসুন আর
পেঁয়াজ খেলে মুখে বাজে গন্ধ হয় আর ধুমপান
করলেও বাজে গন্ধ হয়।কারণ রসুন আর পিয়াজ খাওয়া মাকরুহ
এজন্য ‍সিগারেট খাওয়া মাকরুহ বলেছেন।
কিন্তু এখন বিজ্ঞান উন্নতির ফলে আমরা জানতে পেরেছি
ধুমপান করার ফলে অনেক রোগ হয়। যেমন, ফুসফুসের
ক্যানসার. ব্রনকাটিস, আলসার, ঠোট কালো, যৌন শক্তি
কমে যায়, স্বাস্থ্য খারাপ হবে আরো অনেক রোগ।
সিগারেটের প্যাকেটে মধ্যে লেখা থাকে ধুমপান
করলে মৃত্যু হয়, ধুমপান করলে হার্ট এটাক হয়, ধুমপান
স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।
আর world Health Organization এর মতে বিশ্বে
প্রতি বছর চল্লিশ হাজার লোক মারা যায় ধুমপান করার কারণে।
মেডিসিন সাইন্স এর মতে ধুমপান হচ্ছে slow
poisoning । আর
পবিত্র কুরআন বলছে তোমরা
নিজের হাতে নিজেদের ধ্বংস করনা, সুরা বাকারা,
আয়াত ১৯৫ । এমন অনেক আয়াতের উপর ভিত্তি করে
এখন প্রায় চারশ বিশেষজ্ঞরো বেশি ফতোয়া দিয়েছে
ধুমপান করা হারাম।এটা অনেকটা আত্তহত্তার মত।আর সিগারেট
আছে নিকোটিন আর টাক। ধুমপান করার ফলে একজন
মানুষের প্রায় ৫০-১০০ টাকা খরচ হয়। আর প্রবিত্র কুরআন
বলছে পানাহার করো অপচয় করোনা। সুরা
আরাফ, আয়াত নং ৩১ । প্রবিত্র কুরআন আরো বলছে,
তোমরা অপচয় করোনা, কারণ অপচয় কারি
শয়তানের ভাই। সুরা বনী ইসরা্ঈল, আয়াত ২৬-২৭।
ধুমপান করলে পাশের লোকের ক্ষতি হয়। যে ধুমপান
করে তার চেয়ে বেশি ক্ষতি হয় তার পাশের লোকের
যখন সেই লোক ধোঁয়া ছারে। এজন্য সিঙ্গাপুর সবার
সামনে সিগারেট খাওয়া নিষেধ। আরো অনেক কারণে
ধুমপান করা হারাম বলেছে্
পানঃ শুধু পান খা্ওয়া হারাম নয় কারণ খালি পান করা তেমন ক্ষতি
হয়না আর যদি পানের সাথে জর্দ্দা বা তামাক খায় তাহলে হারাম
কারণ জর্দ্দা বা তামাকে আছে টাক আর নিকোটিন যা
খেলে অনেক ক্ষতি হয় মানুষের, যেটা দোঁয়ার
মাধ্যমে নেয়া হোক বা পানের সাথে চিবিয়ে খাওয়া
হোক ।যে কোন ভাবেই তা গ্রহণ করা হোক তা হারাম।।।পানঃ অনেক বছর আগে যখন বিজ্ঞান তেমন উন্নত
ছিলনা তখন বেশির ভাগ ইসলামিক বিশেষজ্ঞ বলতেন ধুমপান
করা মাকরুহ। আর এর ভিত্তি ছিল একটি হাদিস যেটা আছে সহি
বুখারী খন্ড ১, হাদিস নং ৮৫৫. নবীজি বলেছেন
কখনো কেউ যদি কাঁচা রসুন বা পেঁয়াজ খায়
তাহলে সে যেন আমার কাছ থেকে আর
মসজিদ থেকে দূরে থাকে। এই হাদিস উপর ভিত্তি
করে ফতোয়া দিয়েছিল ধুমপান মাকরুহ কারণ রসুন আর
পেঁয়াজ খেলে মুখে বাজে গন্ধ হয় আর ধুমপান
করলেও বাজে গন্ধ হয়।কারণ রসুন আর পিয়াজ খাওয়া মাকরুহ
এজন্য ‍সিগারেট খাওয়া মাকরুহ বলেছেন।
কিন্তু এখন বিজ্ঞান উন্নতির ফলে আমরা জানতে পেরেছি
ধুমপান করার ফলে অনেক রোগ হয়। যেমন, ফুসফুসের
ক্যানসার. ব্রনকাটিস, আলসার, ঠোট কালো, যৌন শক্তি
কমে যায়, স্বাস্থ্য খারাপ হবে আরো অনেক রোগ।
সিগারেটের প্যাকেটে মধ্যে লেখা থাকে ধুমপান
করলে মৃত্যু হয়, ধুমপান করলে হার্ট এটাক হয়, ধুমপান
স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।
আর world Health Organization এর মতে বিশ্বে
প্রতি বছর চল্লিশ হাজার লোক মারা যায় ধুমপান করার কারণে।
মেডিসিন সাইন্স এর মতে ধুমপান হচ্ছে slow
poisoning । আর
পবিত্র কুরআন বলছে তোমরা
নিজের হাতে নিজেদের ধ্বংস করনা, সুরা বাকারা,
আয়াত ১৯৫ । এমন অনেক আয়াতের উপর ভিত্তি করে
এখন প্রায় চারশ বিশেষজ্ঞরো বেশি ফতোয়া দিয়েছে
ধুমপান করা হারাম।এটা অনেকটা আত্তহত্তার মত।আর সিগারেট
আছে নিকোটিন আর টাক। ধুমপান করার ফলে একজন
মানুষের প্রায় ৫০-১০০ টাকা খরচ হয়। আর প্রবিত্র কুরআন
বলছে পানাহার করো অপচয় করোনা। সুরা
আরাফ, আয়াত নং ৩১ । প্রবিত্র কুরআন আরো বলছে,
তোমরা অপচয় করোনা, কারণ অপচয় কারি
শয়তানের ভাই। সুরা বনী ইসরা্ঈল, আয়াত ২৬-২৭।
ধুমপান করলে পাশের লোকের ক্ষতি হয়। যে ধুমপান
করে তার চেয়ে বেশি ক্ষতি হয় তার পাশের লোকের
যখন সেই লোক ধোঁয়া ছারে। এজন্য সিঙ্গাপুর সবার
সামনে সিগারেট খাওয়া নিষেধ। আরো অনেক কারণে
ধুমপান করা হারাম বলেছে্
পানঃ শুধু পান খা্ওয়া হারাম নয় কারণ খালি পান করা তেমন ক্ষতি
হয়না আর যদি পানের সাথে জর্দ্দা বা তামাক খায় তাহলে হারাম
কারণ জর্দ্দা বা তামাকে আছে টাক আর নিকোটিন যা
খেলে অনেক ক্ষতি হয় মানুষের, যেটা দোঁয়ার
মাধ্যমে নেয়া হোক বা পানের সাথে চিবিয়ে খাওয়া
হোক ।যে কোন ভাবেই তা গ্রহণ করা হোক তা হারাম।।। Facebook এ আমি